আজ ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২২ নভেম্বর ২০১৭ ইংরেজী , বুধবার

ফ্রিলান্সিং নিয়ে কিছু ইতি কথা …।। না দেখলেই চরম মিস ………

ADNAN2359 সেপ্টে. ৮, ২০১৫

আসসালামু আলাইকুম ,আমি আদনান্‌,আমি এখন ও ফ্রিলান্সিং এর জগতে পুরো পুরি প্রবেশ করতে পারিনি… যাই হোক …আর কথা বাড়াবনা এখন কাজের কথায় আসি … আমাদের সবারই ইচ্ছা থাকে যে লাইফ এ একটা ভাল কিছু করতে ,যেমন একটা ভাল চাকরি করতে এবং লাইফ টাকে সুন্দর ভাবে গুছিয়ে নিতে, কিন্তু এখন আমাদের এই দেশে চাকরি নামক সোনার হরিন টা  পাওয়াটা অত সহজ নয় , অনেক এ পড়ালেখা শেষ করে বসে আছে আবার কেও চাকরি ও পেয়ে থাকে, কিন্তু অনেক কষ্টে ।। অথচ দেখা যাই সে যে বেতন পায় ,তাতে সে ভালমত চলতেও পারেনা , কিন্তু আমরা আমাদের স্টুডেন্ট লাইফ এ কত সময় ফ্রী কাটিয়েছি তা আমরা নিজেও জানিনা , যদি আমরা সেই সময় টুকু এর সঠিক ব্যবহার করতে পারলে ভবিষ্যৎ নিয়ে বিপাকে পরতে হতোনা ,… যে পড়ালেখা শেষ করে  কি করব ????
আর আমাদের কেও হাতে ধরে সঠিক রাস্তা ও কেও দেখিয়ে দিবেনা … নিজের  সেই অজানা  পথকে নিজেই খুজে বের করতে  হবে ।।
আমাদের মাঝে অনেক অলস বাক্তি আছেন  যারা ভাবেন যে লাইফ এ তো এখন ও অনেক  বাকি পরে আছে , এখন কিছু করতে
হবেনা…পরে দেখা যাবে ,… এ রকম অলস বাক্তি এর উদাহারন  অনেক আছে , তাদের
জন্য একটা গল্প বলি …
এক লোক রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল। রাস্তার পাশেই একটা হাতি দড়ি দিয়ে বাঁধা । হাতিটাকে এই অবস্থায় দেখে লোকটা খুব অবাক
হলো। কোন শিকল নেই, কোন খাঁচাও নেই। হাতিটার এক পা শুধু একটা পাতলা দড়ি দিয়ে বাঁধা । চাইলেই হাতিটা যে কোন মুহূর্তে দড়ি ছিঁড়ে চলে যেতে পারে। কিন্তু হাতিটা সেখানেই দাঁড়িয়ে আছে। দড়ি ছিঁড়ে চলে যাচ্ছেনা বা ছেঁড়ার কোন চেষ্টাই করছেনা।
অনেকক্ষন আনমনে ভাবলো লোকটা। ঘোর কাটছেনা কিছুতেই। সুযোগ থাকার পরও হাতিটা মুক্ত হওয়ার চেষ্টা করছেনা কেন? কি
এমন কারণ থাকতে পারে এর পেছনে? ঘটনাটা বেশ চিন্তায় ফেলে দিয়েছে লোকটাকে।

কিছুদূর যাওয়ার পর একজন ট্রেইনারের সাথে দেখা হলো তার । “সুযোগ থাকার পরও হাতিটা স্থির দাঁড়িয়ে আছে কেন? কেন সে দড়ি
ছিঁড়ে মুক্ত হওয়ার চেষ্টা করছেনা? ” অনেক আগ্রহ নিয়ে ট্রেইনারকে জিজ্ঞাসা করলো লোকটা।

লোকটার প্রশ্ন শুনে হেঁসে উঠলো ট্রেইনার। বললো “হাতিটা যখন অনেক ছোট ছিল, তখন এরকমই একটা পাতলা দড়ি দিয়ে বেঁধে
রাখা হতো তাকে। তখন বাচ্চা হাতিটাকে বেঁধে রাখার জন্য এই ছোট দড়িটাই যথেষ্ট ছিল। তাই চেষ্টা করার পরও দড়ি ছিঁড়ে সে মুক্ত হতে পারেনি। এরপর সে বিশ্বাস করা আরম্ভ করলো তার পক্ষে এই দড়ি ছিঁড়ে মুক্ত হওয়া সম্ভব না। বয়স বাড়ার সাথে সাথে হাতিটা অনেক পরিনত হয়েছে, কিন্তু তার সেই বিশ্বাস এখনও আছে। সে এখনও ভাবে তার পক্ষে এই দড়ি ছিঁড়ে মুক্ত হওয়া সম্ভব না। তাই সে দড়ি ছিঁড়ে মুক্ত হওয়ার কোন চেষ্টাই করেনি আর” ।
লোকটা অভিভূত হয়ে গেল! নিজেকে মুক্ত করার সুযোগ থাকার পরও হাতিটা যেখানে ছিল সেখানেই স্থির হয়ে আছে কারণ সে ভাবে
তার পক্ষে মুক্ত হওয়া সম্ভব না! এমনকি সে আর চেষ্টাই করে দেখেনি!তো এ রকম অনেকেই আছে্‌  যারা লাইফ টাকে ইস্থির
করে রেখেছে …
Moral : কোন কাজে দু-একবার ব্যর্থ হয়েছি বলে আমাদের কতজন এই হাতিটার মতো “পারবনা” ভেবে জীবনকে এক জায়গাতেই
ঝুলিয়ে রেখেছি? কতজন ভাবছি আমরা অক্ষম, আমাদের পক্ষে কিছু করা সম্ভব না? জীবনের সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এটা
কখনো ফুরিয়ে যায়না। ব্যর্থতা শিক্ষার একটা অংশ, ব্যর্থ হয়েছি বলে কখনই চেষ্টা করা ছেড়ে দেওয়া উচিত না।
আমার এক বড় ভাই এর মাসিক ইনকাম  ৪০০০০-৫০০০০ টাকা ,এটি  আপনিও করতে পারবেন সবাই পারলে আপনি
পারবেন্না ক্যানও … তাই আখন নিজের ইচ্ছা শক্তিকে জাগ্রত করুন …। এবং অণলাইণে  নিজের  ক্যারিয়ার গড়ুন.

আবার অনেক কারণেই শুরুতেই শেষ হয়ে যেতে পারে আপনার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার…যেমনঃ


১। ফ্রিল্যান্সিং করার ১ম শর্ত হল আপনাকে ইংরেজি ভাষা জানতে হবে। ক্লায়েন্টের সাথে যোগাযোগ করার মত দক্ষতা থাকতে হবে। আমি বলছি না যে আপনাকে ইংরেজিতে পণ্ডিত হতে হবে। কিন্তু ইংরেজিতে মেসেজ আদান প্রদান এবং প্রয়োজনে কথা বলার নুন্যতম সামর্থ্য থাকতে হবে। এই শর্তটা যদি পুরণ করতে না পারেন তাহলে ফ্রিল্যান্সিং আপনার জন্য না।


২। আপনি যেই ধরনের কাজ করতে চান সেই বিষয়ে দক্ষ হতে হবে। কাজ না জেনে ফ্রিল্যান্সিং এ আসলে কিছুই করতে পারবেন না। শুধু সময় নষ্ট হবে।

৩। আপনি যে কাজগুলো পারবেন শুধু সেগুলোতেই বিড করবেন। কাজ করতে কোন সমস্যায় পড়লে আপনার ক্লায়েন্টকে বলবেন। কিন্তু সমস্যার কথা এমনভাবে বলবেন যেন ক্লায়েন্ট বুঝতে পারে যে, একটু নির্দেশনা দিলেই আপনি কাজটি করতে পারবেন।

৪। আপনি যদি সঠিকভাবে কাজ সম্পন্ন করতে না পারেন এবং এর কারণে যদি খারাপ ফিডব্যাক পান তাহলে আপনি নিজের ক্যারিয়ারের বৃহত্তর স্বার্থে কাজের পুরা টাকাই ক্লায়েন্টকে রিফান্ড করে দিন। এতে আপনার খারাপ ফিডব্যাক এবং ক্লায়েন্টের মন্তব্য দুটোই আপনার প্রোফাইল থেকে মুছে যাবে। কিন্তু আপনি যদি শুধু ক্লায়েন্টের মন্তব্যটা হাইড করতে চান তাহলে প্রথমে My Job ক্লিক করে Contracts এ ক্লিক করুন। তারপর যে প্রজেক্টের ফিডব্যাক বা মন্তব্য হাইড করতে চান সেটাতে ক্লিক করুন। তারপর Make client’s comment private এ ক্লিক করুন। তাহলে ক্লায়েন্টের মন্তব্যটি আর আপনার প্রোফাইলে শো করবেনা।

৫। কাজ যদি সঠিকভাবে করেন কিন্তু কোন কারনে ক্লায়েন্ট খারাপ ফিডব্যাক দেয় তাহলে প্রথমে ক্লায়েন্টকে প্রফেশনাল ভাবে অনুরোধ করুন ফিডব্যাক পরিবর্তনের জন্য। যদি এতে কাজ না হয় তাহলে মেসেজ অপশনে যান এবং আপনার সম্পর্কে ক্লায়েন্টের ভালো এবং প্রশংসা পাওয়া মেসেজের স্ক্রিন শট নিন। যদি স্কাইপ বা জিটক ব্যবহার করে থাকেন মেসেজ আদান প্রদানের তাহলেও পূর্বের ন্যায় স্ক্রিন শট নিন। এইবার ওডেস্কের কাস্টমার সাপোর্টের সাথে যোগাযোগ করুন এবং সুন্দর ভাবে আপনার সমস্যার কথা তাদের জানান এবং স্ক্রিনশট গুলো দিন। আপনার দাবি সত্য হলে ওডেস্ক ক্লায়েন্টকে সতর্ক করবে এবং ফিডব্যাক প্রত্যাহার করে নিবে।
ফ্রীলাঞ্চিং মার্কেট প্লেস এমন একটা মার্কেট প্লেস যা থেকে ইনকাম করতে একটি টাকা ও ইনভেসট  করতে হয়না … শুধু মাত্র আপনার অভিজ্ঞতা কে কাজে লাগিয়ে আপনি নিজের লক্ষে নিজেই পোওঁছাতে … পারবেন , তাই আজ থেকেই সুরু করে দিন ।।
আপনার ক্যারিয়ার আপনি নিজের হাতেই গড়ুন কষ্ট করে পুরো টুকু পরার জন্য ধন্যবাদ. আশা করি আমি আপনাদের ফ্রীলাঞ্চিং কিভাবে সুরু করবেন , আমি আস্তে আস্তে সকল ভিডিও টিউটোরিয়াল দেওয়ার চেষ্টা  করব ,এবং আমি যা যা পারি সব ই আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব আর যে কোণো কিছু জানতে অথবা কোণো প্রয়োজনে আমাকে ফেসবুক এ নক করতে পারেন।

ADNAN SABBIR

আপনি আরও পড়তে পারেনঃ

logo

টেকপ্রিয়.নেট

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত, বিনা অনুমতিতে কোন লেখকের লেখা কপি না করার অনুরোধ জানানো যাচ্ছে
তবে সুত্র উল্লেখ সাপেক্ষে লেখা শেয়ার করতে পারেন। ধন্যবাদ।

যোগাযোগ

সাইট সম্পর্কে তথ্য, জিজ্ঞাসা, অভিযোগ ও অনুরোধ এর জন্য যোগাযোগ করুন

মোবাইল: ০১৭১৯২৫৯০৪৬