যেসব রদবদল করা হয়েছে উইন্ডোজ ইলেভেনে

কম্পিউটারের জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেম উইন্ডোজের নতুন ভার্সন ১১ সম্প্রতি অবুমুক্ত হয়েছে। অক্টোবর থেকে এই ভার্সন সবাই ব্যবহার করতে পারবেন। তবে একসঙ্গে সব ব্যবহারকারীকে আপডেট লিঙ্ক পাঠানো হবে না। ধীরে ধীরে সমস্ত ব্যবহারকারীকে তা পাঠানো হবে। এর পাশাপাশি উইন্ডোজ ১১ চালানোর জন্য কী কনফিগারেশন প্রয়োজন সেই বিষয়েও জানিয়ে দেওয়া হযেছে।

বেশ কয়েকটি আপডেট নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ১১। অ্যানড্রয়েড অ্যাপ সাপোর্ট, সিস্টেম অ্যাপের রি-ডিজাইন সহ একাধিক আপডেট নিয়ে এসেছে সংস্থাটি। পাশাপাশি স্টার্ট মেনুর পরিবর্তন সহ একাধিক আপডেট নিয়ে আসা হয়েছে।

স্টার্ট মেনুর ক্ষেত্রে যে বড় পরিবর্তনটি এসেছে তা হল স্টার্ট মেনুর স্থানের ক্ষেত্রে পরিবর্তন। এছাড়াও টাস্ক বারের ক্ষেত্রে একটি পরিবর্তন আনা হয়নি। বর্তমানে টাস্ক বারটি ফিক্সট এবং সেটির কোনও পরিবর্তন হয় না। টাস্ক বারটি স্টার্ট মেনুর সঙ্গে একসঙ্গে থাকবে। এগুলোই উইন্ডোজ ১১ এর ক্ষেত্রে মূল পরিবর্তন করা হয়েছে।

স্টার্ট মেনু

উইন্ডোজ ১১ এর ক্ষেত্রে স্টার্ট মেনুটি একদম মাঝখানে থাকবে। এটিকে অবশ্য পুনরায় পুরনো ভাবে বাঁ-দিকে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব। কীভাবে?

টাস্কবারে রাইট ক্লিক করতে হবে। তারপর টাস্কবার বিহেভিয়ার অপশনে ক্লিক করতে হবে। তার পর অ্যালাইনমেন্ট সেটিংসে গিয়ে লেফ্ট সিলেক্ট করতে হবে। এই অপশনে ক্লিক করার পর মেনু ও টাস্কবার বাঁ-দিকে দেখাবে।

টাস্কবার কীভাবে পিন ও আনপিন করা সম্ভব?

যদি কোনও অ্যাপ পিন করার প্রয়োজন হয় সেক্ষেত্রে একটি বিশেষ পদ্ধতি চালু করা হয়েছে। ড্রাগ অ্যান্ড ড্রপ অপশন উইন্ডোজ ১১ এর ক্ষেত্রে কাজ করে না। তবে মনে করা হচ্ছে আগামী দিনে এই ভার্সনের নতুন কোনও আপডেট এলে সেখানে ড্রাগ অ্যান্ড ড্রপ কাজ করবে। তবে বর্তমানে যে ভাবে পিন আনপিন করা যাবে।

প্রথমে ব্যবহারকারীকে নির্দিষ্ট অ্যাপটি খুলতে হবে। তার পর ওই অ্যাপের ক্লক আইকনের উপর ক্লিক করতে হবে। এবং সেখান থেকে টাস্কবারে পিন করার অপশন খুঁজে পাবেন ব্যবহারকারী। তবে কোনও অ্যাপকে শুধুমাত্র টাস্ক বারের উপরেই পিন করা যাবে। অন্য কোথাও পিন করা যাবে না।

অন্য দিকে, আনপিন অপশনটিও অপশনও রয়েছে। কোনও পিন করা অ্যাপের উপর রাইট ক্লিক করতে হবে। এবং সেখান থেকে আনপিন অপশনটি পাওয়া যাবে।

 

বন্ধ করতে কীবোর্ড থেকে ESC চাপুন